বৃহস্পতি
ঊর্ধ্বক্রমবাচকতা { পৌরাণিক সত্তা | কাল্পনিকসত্তা | কল্পনা | সৃজনশীলতা | দক্ষতা | জ্ঞান | মনস্তাত্ত্বিক বিষয় | বিমূর্তন | বিমূর্ত-সত্ত | সত্তা |}
হিন্দু পৌরাণিক কাহিনি মতে ঋষি বিশেষ

এঁর পিতার নাম
অঙ্গিরা মায়ের নাম শ্রদ্ধা উল্লেখ্য, অঙ্গীরা কঠোর তপস্যা দ্বারা অগ্নির চয়েও অধিকতর তেজস্বী হয়ে ওঠলে, অগ্নিহীন অবস্থায় জলে প্রবেশ করেন অঙ্গিরা অগ্নির কাছে গিয়ে জগতের কল্যাণে তাঁকে প্রকাশিত হতে অনুরোধ করলে, অগ্নি, অঙ্গীরাকে অগ্নিত্ব দান করতে ইচ্ছা প্রকাশ করলেন কিন্তু অঙ্গিরা তাতে সম্মত না হয়ে, অগ্নির কাছে একটি সন্তান প্রার্থনা করেন অগ্নি তখন তাতে সম্মত হয়ে সন্তান প্রদান করেন এই সন্তানই বৃহস্পতি নামে খ্যাতি লাভ করেন

বৃহস্পতি, তাঁর বড় ভাই উতথ্যের স্ত্রী মমতার প্রতি আসক্ত হয়ে, তাঁর কাছে সঙ্গম প্রার্থনা করেন। এই সময় মমতার গর্ভে দীর্ঘতমা ঋষি ছিলেন মমতা বৃহস্পতিকে বিভিন্নভাবে নিবৃত্ত করার চেষ্টা করে ব্যর্থ হন। শেষ পর্যন্ত বৃহস্পতির সাথে মিলিত হতে বাধ্য হন। সঙ্গমকালে, গর্ভস্থ দীর্ঘতমা পা দিয়ে বৃহস্পতি স্খলিত বীর্য বাইরে ফেলে দেন এর ফলে বৃহস্পতির বীর্য ভূমিতে পতিত হয় এবং সেখান থেকে ভরদ্বাজের জন্ম হয়


বৃহস্পতি অপর ভাইয়ের নাম ছিল সংবর্ত
ইনি ভাইয়ের সাথে খারাপ ব্যবহার করতেন বলে, এই ভাই বনবাসী হয়েছিল ইনি ছিলেন সপ্তমুখ, সপ্তরশ্মি, মিষ্ট জিহ্বা, নীলপৃষ্ঠ, তীক্ষ্ণশৃঙ্গ ও শতপত্রবিশিষ্ট ইনি যজ্ঞপ্রাপক, রাক্ষস-নাশক, মেঘভেদক ও স্বর্ণ-প্রদায়ক ছিলেনদেবতারা বৃহস্পতিকে গুরুপদে অধিষ্ঠিত করেন বৃহস্পতির স্ত্রীর নাম ছিল তারা চন্দ্র বৃহস্পতির স্ত্রী তারাকে অপহরণ করলে ঘোরতর সংঘাত হয় বৃহস্পতির পুত্রদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য ছিলে কচ।  


রাবণ বধের জন্য রামকে সহায়তা করার লক্ষ্যে, ব্রহ্মা বিভিন্ন দেবতাদেরকে বানর সৃষ্টি করার আদেশ করেন। এই সূত্রে বৃহস্পতি একটি বানর সৃষ্টি করেন। এই বানর পুত্রটির নাম- তারক। [সপ্তদশ সর্গ, বালখণ্ড। বাল্মীকি রামায়ণ]